শনিবার, ডিসেম্বর ২, ২০২৩
spot_img
বাড়িআঞ্চলিকদুমকিতে আমনের ক্ষেত যেন সবুজের বিছানা; বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

দুমকিতে আমনের ক্ষেত যেন সবুজের বিছানা; বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

মোঃ রিয়াজুল, দুমকি (পটুয়াখালীী): পটুয়াখালীর দুমকিতে ফসলের মাঠগুলো যেন সবুজের বিছানা। যতদূর চোখ যায় কেবলই নয়নাভিরাম সবুজের সমারোহ। চলতি বছর আমন মৌসুমে এখন পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় দেখা দিয়েছে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা। উপজেলার কৃষকদের মনে উঁকি দিয়েছে সম্ভাবনার আশার আলো।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, চলতি আমন মৌসুমে অত্র উপজেলায় ৫টি ইউনিয়নে ৬হাজার ৬৪০ হেক্টর জমিতে আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও আমন চাষ করা হয়েছে ৬ হাজার ৬৪১ হেক্টর জমিতে। ১ হেক্টর বাড়তি লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে।

উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের আমনের মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, এখন পর্যন্ত আমনের গাছ বেশ ভাল রয়েছে।কেউ কেউ ক্ষেতের পোকামাকড় দমন করতে ঔষধ স্প্রে করা, জমিতে পানি দেখাসহ বিভিন্ন কাজে ব্যাস্ত সময় পার করছেন। এ সময়ে অত্যন্ত দ্রুত গতিতে বেড়ে উঠছে আমনের গাছ। মাঠে মাঠে হাওয়ায় দুলছে কৃষাণ-কৃষাণীর সোনালি স্বপ্ন। তবে অধিকাংশ কৃষক জানান, এখন পর্যন্ত আমনের ক্ষেতে তেমন কোন রোগ বালাই দেখা যাচ্ছে না। আমনের গাছ ভাল রাখতে ও ধানের উৎপাদন বাড়াতে কৃষকরা দিন রাত সমানতালে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এ এলাকার কৃষকরা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন এলাকার বিশাল জনগোষ্ঠীর খাদ্য চাহিদা মেটাতে দিন রাত যেন সমানতালে পরিশ্রম করে আসছেন। সবুজে ঘেরা আমনের মাঠ রেখে যেন এক মুহূর্তের জন্যেও বসে বিশ্রাম নেওয়ার সময় নেই তাদের। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া সিত্রাংয়ের কারনে তেমন কোম ক্ষয়ক্ষতি না হয়ে বরং পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত হওয়ায় ও তেমন কোন রোগ বালাই না থাকায় বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন তারা। আমনের বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করেন কৃষকরা।

রাজাখালী গ্রামের কৃষক মোঃ দেলোয়ার হোসেন খান চায়না বাংলাকে বলেন, বিগত বছরের তুলনায় এবারে আমন চাষে সবচেয়ে বেশি খরচ হলেও মাঠের ফসলে আমরা অত্যন্ত খুশি।

বাম্পার ফলন হলে কি পরিমাণ ধান কৃষককেরা পেতে পারে এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মেহের মালিকা বলেন, আমাদের অফিস থেকে নিয়মিত সার্ভেলান্স প্রোগ্রাম পরিচলনার মধ্য দিয়ে কৃষকদের মাঠ সরেজমিনে পরিদর্শন করে তাদের উপযুক্ত পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। আবহাওয়া অনুকূলে ও কোন প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে আমনের বাম্পার ফলনে চার থেকে সাড়ে চার টন ধান হতে পারে।

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, cbnnews04@gmail.com ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন chinabanglanews আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।

এই বিভাগের আরও খবর

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

আমাদের লাইক পেজ

- Advertisment -spot_img

জনপ্রিয় পোস্ট